বুকে গুলি খেয়েও চীনা সেনার অনুপ্রবেশ রুখেছিলেন কর্নেল সন্তোষ বাবু, পেলেন মরণোত্তর মহাবীর চক্র সম্মান

বুকে গুলি খেয়েও চীনা সেনার অনুপ্রবেশ রুখেছিলেন কর্নেল সন্তোষ বাবু, পেলেন মরণোত্তর মহাবীর চক্র সম্মান

রাষ্ট্রপতি ভবনে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে কর্নেল বি সন্তোষ বাবুকে মরণোত্তর মহাবীর চক্র দিয়ে সম্মানিত করা হয়েছে। এছাড়াও আরও চার বীর জওয়ানকে মরণোত্তর বীরচক্র সম্মানে সম্মানিত করা হয়েছে।

গালওয়ান  উপত্যকায় চীনকে জব্দ করা বীর পুত্রদের ভারত সরকার সম্মানিত করেছে।

সিপাহী গুরতেজ সিংকে মরণোত্তর বীর চক্র দিয়ে সম্মানিত করা হয়েছে। অপারেশন স্নো লেপার্ডে গুরতেজ সিং গালওয়ান উপত্যকায় চীনা জওয়ানদের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ হারিয়েছিলেন। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ ওনার মা-বাবার হাতে এই পুরস্কার তুলে দিয়েছেন। হাবিলদার তেজেন্দ্র সিংকে গালওয়ানে বীরত্বে সঙ্গে চীনা সেনাদের মুখোমুখি হওয়ার জন্য বীর চক্র দিয়ে সম্মানিত করা হয়েছে। চীনা সেনা আক্রমণে গুরুতর আহত হওয়ার পরেও তিনি রণক্ষেত্র ছেড়ে যান নি।

কর্নেল সন্তোষ বাবু চীনা জওয়ানদের ভারতে প্রবেশ করার চেষ্টা ব্যর্থ করার জন্য নিজের জীবন বলিদান দেন। সন্তোষ বাবু ১৬ বিহার রেজিমেন্টের কমান্ডিং অফিসার ছিলেন। উল্লেখ্য, ১৫ জুন ২০২০ সালে গালওয়ান উপত্যকায় চীনা সেনাদের সঙ্গে হওয়া সংঘর্ষে ভারতের ২০ জন বীর জওয়ান প্রাণ হারান।