Home জলপাইগুড়ি কাঠ পেন্সিলের উপর বিভিন্ন প্রতিভা দেখিয়ে ভাইরাল জলপাইগুড়ি জেলার ধনঞ্জয় রায়

কাঠ পেন্সিলের উপর বিভিন্ন প্রতিভা দেখিয়ে ভাইরাল জলপাইগুড়ি জেলার ধনঞ্জয় রায়

নিজেদের প্রতিভাকে সকলের সামনে তুলে ধরে ভাইরাল হতে দেখা যায় সেলিব্রিটি থেকে সাধারণ মানুষদের। সোশ্যাল সাইড এ নিজেদের প্রতিভা তুলে ধরে মুহূর্তে জনপ্রিয়তা অর্জন করে ফেলতে দেখা যায় অনেকেই। উঠে যায় চারিদিকে প্রশংসার ঝড়। রাতারাতি লাভ করে বিপুল পরিচিতি।

এবার সেই পথে চললেন ধূপগুড়ি ব্লকের গধেযার কুঠি গ্রাম পঞ্চায়েত এর ধনঞ্জয় রায়। তিনি ইংরেজি বর্ণের A থেকে Z পযন্ত বানিয়েছেন। তিনি মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে গেলেন। ধনঞ্জয় ধূপগুড়ি সুকান্ত মহাবিদ্যালয় এর প্রথম বর্ষের ছাত্র।

কাঠ পেন্সিলের উপর বিভিন্ন প্রতিভা দেখিয়ে ভাইরাল জলপাইগুড়ি জেলার ধনঞ্জয় রায়

ধনঞ্জয় এর বাবার নাম তপন রায় এবং মায়ের নাম শান্তি রায়। ধনঞ্জয় বাড়িতে তার মা , বাবা সহ দুই ভাই এর সাথে থাকেন। তিনি কাঠপেন্সিল এ বহু মুনিষী দের ছবি এঁকেছেন।

কাঠ পেন্সিলের উপর বিভিন্ন প্রতিভা দেখিয়ে ভাইরাল জলপাইগুড়ি জেলার ধনঞ্জয় রায়

তিনি কাঠপেন্সিল এ গণেশ ঠাকুর এর মূর্তি , রাধাকৃষ্ণন এর মূর্তি , গোপাল এর মূর্তি সহ নানা কারুকার্য করেন। এই মূর্তি গুলো তৈরী করতে তার ব্লেড , সারাশি , কাচি সহ নানা যন্ত্রপাতি লেগেছে।

কোনো মূর্তি বানাতে তার দুই ঘন্টা কোনটা বানাতে চার ঘন্টা কোনটা দেড় ঘন্টা সময় লেগেছে। পড়াশোনার পাশাপাশি তিনি এই সব কারুকার্য এর কাজ চলছে। এরপরই তার আইফেএল টাওয়ার বানানোর কাজ চলছে।

কাঠ পেন্সিলের উপর বিভিন্ন প্রতিভা দেখিয়ে ভাইরাল জলপাইগুড়ি জেলার ধনঞ্জয় রায়

ধনঞ্জয় এর বাবা তপন রায় জানান , তিনি কৃষিকাজ করে খান তাই তিনি তার সন্তানদের সেভাবে যত্ন করতে পারেননি। তবে ধনঞ্জয় কোনো শিক্ষক ছাড়াই যেভাবে নানা কারুকার্য করছেন তাতে তারা খুব গর্বিত কিন্তু ধনঞ্জয় যদি কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এ থাকে তাহলে ভবিষ্যত এ আরও এগিয়ে যাবেন।

কাঠ পেন্সিলের উপর বিভিন্ন প্রতিভা দেখিয়ে ভাইরাল জলপাইগুড়ি জেলার ধনঞ্জয় রায়

ধনঞ্জয় জানান , অনেক দিন থেকে সকলে গিনিস বুক এ নাম ওঠার প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে সেই দেখেই তিনি এই কাজে আগ্রহী হয়ে পড়েন। এই দেখে তিনি আরও উৎসাহ পেয়েছেন। তার এই কর্মের জন্য স্থানীয় যুব মঞ্চের পক্ষ থেকে তাকে সম্বর্ধনা দেওয়া হয়েছে। ধূপগুড়ির ধনঞ্জয় তার প্রতিভার দ্বারা মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

শীর্ষ সংবাদ

- Advertisement -

অন্য রকম