Home আন্তর্জাতিক চীনকে রুখতে আমেরিকা থেকে চারটি সাবমেরিন ও ধ্বংসকারী পি-৮আই বিমান আসছে ভারতে!

চীনকে রুখতে আমেরিকা থেকে চারটি সাবমেরিন ও ধ্বংসকারী পি-৮আই বিমান আসছে ভারতে!

দৈনিক ডেস্ক:- চীন দিনকে দিন যেভাবে ভারতের বিরুদ্ধে কূটনীতি করে চলেছে, তাতে আমাদের ভারতীয়দের কিন্তু এর বিরুদ্ধে মোকাবিলা করতেই হবে।তাই সেই উদ্দেশ্যেই ক্রমশ নিজেদের সামরিক শক্তি বাড়াচ্ছে ভারত। চীন কেবলই নিজেদের সামরিক ক্ষমতা স্থাপন করে চলেছে দক্ষিণ চীন সাগরের বুকে। এছাড়া অন্যত্রও সেই কাজ করার চেষ্টা চালাচ্ছে বেজিং। এমতাবস্থায় আগামী বছরই আমেরিকা থেকে চারটি সাবমেরিন ধ্বংসকারী পি-৮আই বিমান কিনছে ভারত। জানা গিয়েছে এই বছরের শেষে আরো ছয়টি বিমান কেনার কথা ভারতের। যা ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে অনেকটা শক্তি বাড়াবে ভারতের।

বিশেষভাবে তৈরি করা পি-৮এ পসেইডন গোত্রের যে পি-৮আই বিমান ভারতীয় নৌবাহিনীর হাতে বর্তমান, তা সমুদ্রে টহলদারির জন্য রয়েছে। সেই বিমানের সংখ্যায় ‘আই’ হিসেবে ইন্ডিয়াকে চিহ্নিত করা হয়েছে। বিমানে আছে হারপুন ব্লক-২ ক্ষেপণাস্ত্র এবং হালকা টর্পেডো। শত্রুপক্ষের সাবমেরিনের অবস্থান জানতে মোট ১২৯ টি সোনাবুয় বহন করতে পারে বিমানটি। যা কিনা রেডিয়ো সিগনালের মাধ্যমে লুকিয়ে থাকা সাবমেরিনকে নিমেষে ধ্বংস করে দিতে পারে এবং ঠিক একইসঙ্গে জাহাজ ধ্বংসের জন্য ক্ষেপণাস্ত্রও ছুড়তে পারে। সেটির পাল্লা ২,২০০ কিলোমিটার। বিমানটি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৭৮৯ কিলোমিটার বেগে উড়তে পারে। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন নতুন ক্ষেপণাস্ত্রবাহী বিমানের ফলে দূরপাল্লার সাবমেরিন ধ্বংস, নজরদারি, গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ এবং ইলেট্রনিক সিগনাল রুদ্ধ করার ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে ভারতীয় নৌবাহিনীর।

সম্প্রতি বেজিং নিজেদের সামরিক শক্তিকে কাজে লাগিয়ে মায়ানমার, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, ইরান এবং পূর্ব আফ্রিকার একাধিক বন্দরে নিজেদের দখলদারী কায়েম করছে। শুধু কি ভারতীয় নৌবাহিনীকে ঠেকানোর জন্য? মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ড ফোর্সেস, ফরাসি এবং ব্রিটিশ নৌসেনাকেও চ্যালেঞ্জ ছোড়ার জন্য সেই পথে হেঁটেছে শি জিনপিং প্রশাসন। এক সরকারি আধিকারিক জানিয়েছেন, জাতীয় সুরক্ষার পরিকল্পনার সঙ্গে যুক্ত আধিকারিকদের বিশ্বাস, ‘ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে পাখির চোখ করার সময় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর চীনের আগ্রাসী পদক্ষেপের যোগসূত্র আছে। এই পরিস্থিতিতে পি-৮আই বিমান আসার ফলে ভারত অত্যন্ত লাভবান হবে বলেই মনে আশা করা যায়।’ বিশেষজ্ঞরাও এই সিদ্ধান্তে উপনীত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

শীর্ষ সংবাদ

- Advertisement -

অন্য রকম