কাশ্মীরি পণ্ডিতদের হত্যার বদলা, এনকাউন্টারে উপত্যকায় খতম ৪ জেহাদি

কাশ্মীরি পণ্ডিতদের হত্যার বদলা, এনকাউন্টারে উপত্যকায় খতম ৪ জেহাদি

কাশ্মীরি পণ্ডিতদের হত্যার প্রতিশোধ নিল সেনাবাহিনী। লাগাতার এনকাউন্টারে জওয়ানদের হাতে নিকেশ চার কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদী। নিহত জঙ্গিদের মধ্যে রয়েছে লস্কর-ই-তইবার শাখা সংগঠন দ্যা রেজিসটেন্স ফ্রন্টের (TRF) শীর্ষ স্থানীয় কমান্ডার।

কাশ্মীর পুলিশ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার শ্রীনগরের (Srinagar) রামবাগে নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে সংঘর্ষে তিন সন্ত্রাসবাদীর মৃত্যু হয়েছে। তিন জঙ্গিদের মধ্যে একজন ‘দ্যা রেজিসটেন্স ফ্রন্টের (TRF) শীর্ষ স্থানীয় কমান্ডার। অন্য একজন হিজবুল মুজাহিদিনের সদস্য বলেও দাবি করছে পুলিশ। অন্য কোন জঙ্গি সংগঠনের সদস্য ছিল তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। নিহত জঙ্গিদের মধ্যে একজনের পরিচয় পাওয়া গিয়েছে।

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে কাশ্মীর পুলিশের আইজি বিজয় কুমার বলেছেন, শ্রীনগর এনকাউন্টারে নিহত তিন জঙ্গির মধ্যে একজনের নাম মেহরান। এদিকে, ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করায় গতকাল রাতে এক পাকিস্তানি জেহাদিকে খতম করে ফৌজ।

১৯৮৯ সালে এক কালো অধ্যায়ের সাক্ষী থাকে কাশ্মীর। ওই বছর ১৪ সেপ্টেম্বর কাশ্মীরে হত্যা করা হয়েছিল এক হিন্দু ব্রাহ্মণকে। সন্ত্রাসবাদী সংগঠন জেকেএলএফ-এর প্রথম টার্গেট ছিলেন পন্ডিত টিকালাল তাপলু। ওঁর হত্যা কাশ্মীরে হিন্দুদের মধ্যে যে আতঙ্ক ছড়িয়েছিল, তার আঁচ ছড়িয়েছিল গোটা দেশজুড়ে। তারপর ‘ভূস্বর্গে’ সংখ্যালঘুদের নারকীয় হত্যালীলা ও রাতারাতি কাশ্মীরি পণ্ডিতদের পলায়ন গোটাটাই ইতিহাস। প্রায় তিন দশক পর ফের উপত্যকায় ফিরছে সেই ভয়াবহ দিনগুলি। আবারও কাশ্মীরি পণ্ডিতদের হত্যা করছে জঙ্গিরা। ফলে ঘর ছেড়ে পালিয়েছেন অনেকেই। কিন্তু এবার সেই হত্যার প্রতিশোধ নিয়ে জেহাদিদের নিকেশ করছে সেনাবাহিনী।