Home জলপাইগুড়ি ডিজিটাল দুনিয়াতে দাঁড়িয়েও ওঝা'র তুকতাকে বেঘোরে প্রাণ দিতে হল এক গৃহবধূকে

ডিজিটাল দুনিয়াতে দাঁড়িয়েও ওঝা’র তুকতাকে বেঘোরে প্রাণ দিতে হল এক গৃহবধূকে

জলপাইগুড়িঃ বর্তমান সমাজ এত আধুনিক হওয়া সত্বেও কোথাও না কোথাও মানুষ এখনও অন্ধবিশ্বাসে নিমজ্জিত।সাপ কাটার পর সেই রোগীকে ডাক্তার এর কাছে না নিয়ে যাওয়ার তার ফল ভুগতে হলো এক গৃহবধূকে।চারিদিকে এত সচেতনতা সত্বেও এমন ঘটনার সাক্ষী হতে হল আমাদের।

এমনই একটি ঘটনা প্রকাশ্যে এলো জলপাইগুড়ি সংলগ্ন রাহুত বাগান এলাকাতে।সাপ কাটার পর এক গৃহবধূকে প্রাণ হারাতে হলো ওঝার হাতে।কয়েক বছর আগে এই একই ভাবে বিনা চিকিৎসাতে প্রাণ হারায় এক স্কুল ছাত্রী। আবারও সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় গত মঙ্গলবার বিকেলে এক মা তার ছোটো বাচ্চাকে খেলার ছলে খাওয়াছিলেন বছর তিরিশের রুমা ভাওয়াল।সেই সময় তার ডান পায়ে বুড়ো আঙ্গুলে সাপ কামড়ায়।তড়িঘড়ি তাকে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় বীরেন্দ্র ভাওয়াল নামে এক ওঝার কাছে। পায়ে কাপড় বেধেঅনেকক্ষণ চেষ্টা করেও বিষ নামাতে পারে নি।ওঝা বেগতিক দেখে তাকে ছেড়ে দেয়।

অবশেষে পরিস্থিতি ভালো না দেখে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় সুপার স্পেশালিটি হসপিটালে,সেখানে ডাক্তার তাকে দেখার পর মৃত বলে ঘোষণা করেন।জলপাইগুড়ি পরিবেশকর্মী বিশ্বজিৎ দত্ত চৌধূরী জানান এমন ঘটনাতে তিনি মর্মাহত।

তিনি বলেন এমন ঘটনা এই এলাকাতে এর আগেও ঘটেছে।পায়ে ক্ষতের পরিণতি দেখে মনে হয় বিষধর সাপ ছিল।তবে যখন রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় তখন আর কিছুই করবার ছিল না।দুবছর পরই যে আবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলো তা কেও আশা করতে পারে নি। এই বিষয়ে পুনরায় সচেতনতা প্রচার চালানো হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

জলপাইগুড়ি হাসপাতালের সুপার গয়ারাম নষ্কর জানান, সাপে কাটা রোগীকে মৃত অবস্থাতেই হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়,আমরা চিকিৎসা করবার কোনোরকম সুযোগ পাই নি।এই ঘটনাতে ওই এলাকার সমস্ত মানুষ অত্যন্ত মর্মাহত।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

শীর্ষ সংবাদ

- Advertisement -

অন্য রকম