Home দেশ রাফালের সামনে চিন পাকিস্তানের সমস্ত অস্ত্র বাচ্চা : বললেন ভারতের প্রাক্তন বায়ুসেনা...

রাফালের সামনে চিন পাকিস্তানের সমস্ত অস্ত্র বাচ্চা : বললেন ভারতের প্রাক্তন বায়ুসেনা প্রধান

অনলাইন ডেস্ক,৩০জুলাইঃ ২০১৬ সালের রাফেল চুক্তির দীর্ঘ ৪বছর পর ভারতের কাছে এলো ভারতের শক্তির এক অন্যতম কান্ডারি রাফেল। সত্যিই ২৯শে জুলাই দিনটি ভারতের ইতিহাসে একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দিন হিসেবে ভারতীয়দের মনে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।প্রায় ৭০০০হাজারের মতো পথ অতিক্রম করে ফ্রান্স থেকে ভারতে এসে পৌঁছয় ভারতীয় বায়ুসেনার অন্যতম হাতিয়ার রাফেল।বর্তমান পরিস্থিতিতে ভারতে রাফেলের উপস্থিতি চিন ও পাকিস্তানের মতো ভারতের শত্রুদের কাছে ভয়ানক এক চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ভারতীয় বায়ুসেনার এক প্রাত্তন প্রধান কিছু যুক্তির মাধ্যমে শত্রু চিনের কাছে রাফেলকে টেক্কা দিতে কোনো রকম বিমান নেই বলে তিনি দাবি করেন, প্রাত্তন সেনা প্রধান বলেন,”রাফেল বিমান গুলো অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে ভরপুর,বিমানগুলোতে ‘কোল্ড স্টার্ট’ অর্থাৎ ঠান্ডা এলাকা যেমন, লাদাখের মতো উঁচু জায়গাতেও বিমানের ইঞ্জিন কাজ করতে সক্ষম, যেখানে চিনের কাছে থাকা বিমান গুলো অক্ষম।এছাড়াও বিমান গুলোতে স্কাল্প ও মেটিওর ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে এমনকি মার্কিন বিমান গুলোতে মেটিওর এর মতো ক্ষেপণাস্ত্রর ব্যবহার হয়”।প্রাত্তন প্রধান আরও বলেন,”প্রায় ১৫০কিমি পর্যন্ত যে কোনো লক্ষ্যকে নিশানায় আনতে পারে “।

প্রাত্তন এয়ার চিফ মার্শাল ধানোয় এক সাক্ষৎকারে বলেন,চিনে তৈরী হওয়া j-20 যুদ্ধবিমান রাফেলের সামনে কিছুই না।লাদাখে চিনের পরবর্তীতে যেকোনো রকম ভুল কিন্তু চিনকে সেই জন্যে বড়ো রকমের ক্ষতির সম্মুখীনে ফেলতে পারে।ভারতের সাথে যুদ্ধ পরিস্থিতি বাঁধলে চিন কোনোভাবেই রক্ষা পাবে না রাফেলের হাত থেকে।এইদিন প্রাত্তন চিফ মার্শালের প্রশ্ন,যদি চিনের যুদ্ধ বিমান এতই শক্তিশালী হতো তাহলে চিনের বন্ধু পাকিস্তান কেন চিনের বিমান ছেড়ে বালাকোটে F-16 মার্কিন বিমানের ব্যাবহার করলো?চিনের J-20 বিমান যে রাফেলের মোকাবিলায় কিছুই না এইদিন ধানোয়র কথায় স্পষ্ট বোঝা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

শীর্ষ সংবাদ

- Advertisement -

অন্য রকম