Home আন্তর্জাতিক ৫০০ কোটি টাকা খরচ করে তৈরী বাড়িতে থাকেন একাই, নেট দুনিয়ায় ভাইরাল...

৫০০ কোটি টাকা খরচ করে তৈরী বাড়িতে থাকেন একাই, নেট দুনিয়ায় ভাইরাল এই বাড়ি

সাখাওয়াত হোসেন টুটুল টানা ১২ বছর ধরে ৫০০ কোটি টাকা খরচ করে রাজপ্রাসাদ এর মতো একটি বাড়ি তৈরী করেছেন। ওই গ্রামে এতো সুন্দর বাড়ি আর একটাও নেই। ওই এলাকায় সব বাড়ি টিনের বেড়া দেওয়া। সেখানেই তৈরী হয়েছে শ্বেত পাথরের তৈরী এই অট্টালিকা। যদিও জানা যায় ওই বাড়িতে এখন কেউ বসবাস করে না কারণ বাড়ির মালিক দুর্নীতি দমন কমিশন এর মামলায় এখন জেলে। বাড়ি দেখাশোনার জন্য শুধু একজন কেয়ারটেকার আছে।

গ্রামের বাসিন্দা সূত্রে জানা যায় , টুটুল স্কুল জীবনেই বাবা মায়ের ওপর অভিমান করে বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে এসেছিলো। তারপর তিনি ঢাকায় বাস করেন। সেখানে তিনি এক অবাঙালি মেয়েকে বিয়ে করেন। তারপর তার ভাগ্যের উন্নতি ঘটে। তার বাড়িতেই আছে ইটভাটা , ফুড ফ্যাক্টরি , ঢাকাতে অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল , এছাড়া বিভিন্ন ব্যবসা সহ শতাধিক বিঘা জমি। তবে তিনি এতো সম্পত্তি হঠাৎ করে কোথায় পেলেন এতে গ্রামের বাসিন্দার কৌতূহল রয়েছে।

তার তৈরী বাড়িটি দূর থেকে লন্ডনের ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এর মতো দেখতে। মূল ফোটক টি নটরের উত্তরা গণ ভবনের নকশা তে নির্মিত। বাড়িতে রয়েছে হংস ফোয়ারা চার ধরে সান বাঁধানো পুকুর। বাড়িতে প্রথমে ঢুকতেই একটি বড়ো হল ঘর। তারপরেই আছে উপরে ওঠার জন্য সিঁড়ি। সিঁড়ি দিয়ে উঠতে নজর পরে প্রাচীন ইতিহাস এর চিত্র আঁকানো পোড়া মাটির ফলক। বাড়ির প্রতিটা ঘরে আছে এয়ার কন্ডিশন। ঘর গুলো সব বড়ো বড়ো। বাড়িতে আছে হোটেলে ফাইভ ষ্টার এর মতো লাউঞ্চ। আবার চতুর্থ তলায় আছে বিদেশী দের অনুষ্ঠান করার মতো জায়গা। বাড়িটি তৈরী করার জন্য শ্রমিক দের বাইরে থেকে নিয়ে আসা হয়েছে। বাড়িটি ছাড়াও সেখানে আছে ফুলের বাগান ও নানা পশু নিয়ে একটি পার্ক। বাড়িটির প্রতিটা জানালা ও দরজা কাঠের তৈরী। কাঠ গুলো সব দামি দামি। বাড়িটি সম্পূর্ণ শ্বেত পাথরের তৈরী।

বাড়িটি দেখতে নানা জায়গা থেকে নানা দর্শক আসেন। যদিও এখন বাড়ির ভেতরে কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হয় না কারণ বাড়ির মালিক টুটুল জেলে। নানা সূত্রে জানা যায় টুটুল এই বাড়ির কারণেই এখন জেলে। অনেকেই বলেন টুটুল খুব জনপ্রিয় মানুষ। নানা মানুষের বিপদে তিনি সাহায্য করেন। তবে বাড়ির মালিক টুটুল এখন বলেনি কেন তিনি এই বাড়ি তৈরী করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

শীর্ষ সংবাদ

- Advertisement -

অন্য রকম