Home দেশ উড়িষ্যায় ফরেস্ট অফিসারের দ্বারা তৈরি 'মডেল ভিলেজ'! ৩৫টি পরিবারের আয় আজ প্রায়...

উড়িষ্যায় ফরেস্ট অফিসারের দ্বারা তৈরি ‘মডেল ভিলেজ’! ৩৫টি পরিবারের আয় আজ প্রায় ২ কোটি

পৃথিবীতে দিনকে দিন নানা দূষণ বেড়েই চলেছে। কিন্তু এর মধ্যেও অনেকেই আছেন যারা পৃথিবীকে দূষণ মুক্ত গড়ে তুলতে চান। মুদুলিগাদিয়া একটি ছোট জনপদ। এটি সাতকশিয়া ঘাট সংলগ্ন মহানন্দা নদীর তীরে নয়াগড় জেলার অন্তর্গত। এখানে মোটামুটি ৩৫ টি পরিবার বসবাস করে। এটি উড়িষ্যার প্রথম পরিবেশবান্ধব ও স্বনির্ভর গ্রাম হিসেবে স্বীকৃতি পায়।

মুদুলিগাদিয়া গ্রাম প্রথম যে গ্রামের বাসিন্দাদের চেষ্টায় প্রথম দূষণমুক্ত মডেল গ্রাম হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। এই গ্রামের আয় ২ কোটি টাকা। এখানে ব্যাবহার হয়না কোনোরকমের রাসায়নিক দ্রব্যে। সব কাজ গ্রামের সকলে ভাগ করে নিয়েছেন। আর গ্রামবাসীদের নেতৃত্ব দিয়েছেন অংশু প্রজ্ঞান দাস তিনি মহানন্দা ওয়াইল্ড লাইফ ডিভিশন এর দায়িত্বপ্রাপ্ত ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার।

টাইগার রিজার্ভ ২০১৬ সালে সাতকাশিযার আশেপাশে গ্রামগুলিকে স্থানীয়বাসিন্দাদের দ্বারা পর্যটন শিল্প সংহত করার পরিকল্পনা করে। এই প্রজেক্টের জন্য ৪৫ টি গ্রামকে পর্যটন কেন্দ্র তৈরী করা হয় যা দেখাশোনার দায়িত্ব ছিল গ্রামবাসীদের। গ্রামবাসীরা নদীর জলকে বিশুদ্ধভাবে ব্যাবহার করে। জল সংরক্ষণ করা।

গ্রামবাসীরা বিশুদ্ধ পানীয় জলের জোগানের দ্রুত ব্যবস্থা করে। গ্রামের নোংরা ফেলার জন্য রয়েছে ডাস্টবিন। গ্রামের যেখানে সেখানে নোংরা ফেলা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। টাইগার রিজার্ভ এর আশেপাশে এলাকায় বসবাস এর জন্য গ্রামবাসীরা জীবিকার জন্য জঙ্গলে মধু , তুলো , জ্বালানি সংগ্রহে যায়। তাদের আহরণ করা সেই বনের দ্রব্যে গুলো যাতে সঠিক দামে চাহিদাসম্পূর্ণ জায়গায় বিক্রি হওয়ার ব্যবস্থা করা হয়।

গ্রামের প্রতিটি ঘরে রয়েছে শৌচালয় এছাড়া বাইরের কেউ এলে তাদের জন্য থাকে আলাদা শৌচালয়। মুদুলিগাদিয়া গ্রামে সম্পূর্ণ জৈব সার ব্যাবহার করে চাষবাস করা হয়। মুদুলিগাদিয়া গ্রামবাসীরা নিজেদের চেষ্টায় গ্রামকে সম্পূর্ণ দূষণমুক্ত গড়ে তোলার কাজ করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

শীর্ষ সংবাদ

- Advertisement -

অন্য রকম