Home কোচবিহার পঞ্চায়েত অফিসে প্রাত্তন প্রধানকে ঢুকতে বাধা,ব্যাপক উত্তেজনা কোচবিহার জেলা জুড়ে!

পঞ্চায়েত অফিসে প্রাত্তন প্রধানকে ঢুকতে বাধা,ব্যাপক উত্তেজনা কোচবিহার জেলা জুড়ে!

কোচবিহার,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ কোচবিহারের দিনহাটার নাজিরহাটের ২নং গ্রামপঞ্চায়েত অঞ্চলে এই ঘটনা ঘটেছে।খবর সূত্রে জানা যায়,গ্রাম পঞ্চায়েতের গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান পদের ক্ষমতা দখলকে নিয়ে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।এইদিন অভিযোগ আসে,ওই গ্রামপঞ্চায়েত নিজেকে প্রধান হিসেবে দাবী করে আসা পাপিয়া রায়কে হেনস্থার শিকার হতে হয়।

তৃণমূল পঞ্চায়েত গঠনের সময় ওই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান হিসেবে নিযুক্ত হন পাপিয়া রায়।কিন্তু সঠিক মতো পঞ্চায়েত অফিসে না আসার অভিযোগ আসে তার নামে, তার ফলেই পঞ্চায়েতের বিভিন্ন রকম কাজকর্ম রীতিমতো থমকে যায়।এর পরেই প্রধানের ওপর ক্ষেপে গিয়ে ১৩জনের অন্য সদস্যদের সম্মতি নিয়ে উপপ্রধান নাসিরুদ্দিন মিয়াঁকে প্রধানপদে দায়িত্ব দেওয়া হয়।কিন্তু পাপিয়া রায়কে সরিয়ে দিতেই দিনহাটা তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ এই ঘটনায় খুশিনন বলে জানান।এর পরেই আজকে পাপিয়া রায় আজকে পুলিশকে সাথে নিয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসে জান কিন্তু সেখানেই বর্তমান প্রধানের অনুগামীরা পাপিয়াকে আটকে দেয়।এর পরেই পঞ্চায়েত অফিসের সামনে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

ঘটনায় পাপিয়া রায়ের অভিযোগ,”বিডিওর নির্দেশে এইদিন পুলিশ নিয়ে আমি গ্রামপঞ্চায়েত অফিসে ঢুকতে যাই।পাপিয়া জানায় এই দিন পঞ্চায়েত অফিসে ঢুকতেই তাকে দলের অন্য গোষ্ঠীর লোকেরা আটকে দেয়।

এই ঘটনায় বিরোধী গোষ্ঠীর প্রধান নাসিরুদ্দিন মিঞা বলেন,সেই সময়ে আমি গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য ছিলাম না।আমি শুনেছি সাধারণ মানুষ উনাকে পঞ্চায়েত অফিসে দুখতে দেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

শীর্ষ সংবাদ

- Advertisement -

অন্য রকম