Home লাইফস্টাইল বিয়ের পিঁড়ি থেকে পালিয়ে আজ 'অফিসার'! বাড়ি ফিরলেন প্রায় ৭ বছর পর

বিয়ের পিঁড়ি থেকে পালিয়ে আজ ‘অফিসার’! বাড়ি ফিরলেন প্রায় ৭ বছর পর

অনেকেই অনেক লড়াই করে নিজেদের স্বপ্নপূরণ করে। নিজেদের জীবনের স্বপ্ন পূরণের জন্য অনেক কঠিন লড়াইয়ে নেমে পড়েন। এমনই একটি মেয়ের লড়াই এর কাহিনী সত্যিই কঠিন।উত্তরপ্রদেশের মেরঠের বাসিন্দা সঞ্জু রানী ভার্মা। তার জীবনের কাহিনীও যেন এক লড়াই। নিজের জেদ বজায় রাখতে নিজের স্বপ্ন এর লক্ষ্যে পৌঁছতে এবং বিয়ে না করার জন্য তিনি বাড়ি ছেড়ে চলে গেছেন।

২০১৩ সালে তিনি বাড়ি ছাড়েন। তার মায়ের মৃত্যুর পর পরিবারের লোকজন তাকে পড়াশোনা ছেড়ে বিয়ে করার প্রস্তাব দেন। কিন্তু সঞ্জু কিছুতেই এই প্রস্তাব এ রাজী হন না। তিনি কিছুতেই পড়াশোনা ছেড়ে বিয়ে করতে চাননা। তিনি জীবনে নিজের স্বপ্ন পূরণ করতে চেয়েছেন।

তিনি বরাবরই স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসতেন। তিনি চেয়েছেন নিজের পায়ে দাঁড়াতে। সঞ্জু রানী একজন সাধারণ পরিবারের মেয়ে। তার পরিবারকে তিনি তার স্বপ্নের কথা বলে কিন্তু পরিবারের লোকজন তাকে বুঝতে চান না। বিয়ের জন্য জোর দিতে থাকে। ২০১৩ সালে বাড়ি ছেড়ে তিনি দিল্লীতে আসেন।

মেরঠের আর জি ডিগ্রি কলেজে গ্রাডুয়েশন করার পর দিল্লীতে স্নাতকত্তর হন। আজ তিনি উত্তরপ্রদেশ প্রভিন্সিয়াল সিভিল সার্ভিস এক্সামিনেশন ২০১৮ উত্তীর্ণ হয়ে অফিসার হতে চলেছেন। উত্তরপ্রদেশ কমারশিয়াল ট্যাক্স অফিসার হিসেবে হয়তো যোগ দিবেন তিনি।

দিল্লীতে এসে তিনি প্রথমে সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় বসার প্রস্তুতি নেন। কিন্তু তার জীবনের যাত্রা সত্যিই কঠিন। এত দূর আসতে তাকে অনেক লড়াই করতে হয়। ২০১৩ সালে বাড়ি ছাড়ার পর টাকার অভাবে তাকে পড়াশোনাও ছাড়তে হয়।

তারপর তিনি একটি বেসরকারি স্কুলে শিক্ষিকার চাকরি পান। তিনি বাচ্চাদের পড়ানো শুরু করেন। তবে তার স্বপ্ন আরও বড়ো হওয়ার ইউপিএসসি পরীক্ষায় বসতে চান তিনি। তিনি জেলাশাসক হতে চান। তিনি আরও পড়াশোনা করতে চান। তিনি মনে করেন তাকে এখানেই থেমে পড়লে চলবে না। তাকে জীবনে আরও বড়ো হতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

শীর্ষ সংবাদ

- Advertisement -

অন্য রকম